বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বলকারী চিকিৎসকের নাম এ আর এন এম হাসিবুল হক লিমন

20728109_1604640039586783_9020938485098517811_n

ডা. এ আর এন এম হাসিবুল হক লিমন।  পৈতৃক বাড়ি বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়ারচর উপজেলার আগরপুর গ্রামে। বাবা প্রকৌশলী নুরুল হক ও মা ইসমাত আরা জাহান। তাঁরা ঢাকার পূর্ব কাফরুলে থাকেন। লিমন ঢাকার গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি হাইস্কুল থেকে মাধ্যমিক এবং ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাশের পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন। অস্ট্রেলিয়ার রয়াল অস্ট্রেলেশিয়ান কলেজ অব ফিজিশিয়ান থেকে এফআরএসিপি পাস করেন ২০১২ সালে।

বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার বিখ্যাত ব্রোকেন হিল হেলথ সার্ভিসে কনসালট্যান্ট চিকিৎসক ও জেরিয়াট্রিক মেডিসিন বিশেষজ্ঞ হিসেবে নিযুক্ত রয়েছেন তিনি। ২০০৭ সালে তিনি ক্যানবেরা হাসপাতালে শ্রেষ্ঠ রেসিডেন্ট মেডিকেল অফিসার হিসেবেও পুরস্কৃত হয়েছিলেন। তাঁর সহধর্মিণী ডা. শাতিলা জাফরীন একই হাসপাতালে মেডিকেল অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন।

গত ৪ আগস্ট শুক্রবার চিকিৎসা সেবায় বিশেষ অবদানের জন্য আবারও পুরস্কৃত হয়েছেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের পশ্চিম স্থানীয় জেলা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যসেবায় শ্রেষ্ঠ নেতৃত্বের জন্য তাঁকে এ সম্মাননা দেওয়া হয়।

ডাঃ লিমন কি এই দেশে তার যোগ্য সম্মান পেত? আমার মনে হয় না। কোন উপজেলায় পোস্টিং হলে হয় মার খেত না হয় বদলি এবং কুচক্রিদের চক্করে পড়ে বিলীন হয়ে যেত। একটু পূর্বে আমি বলেছিলাম এই দেশে ভালো চিকিৎসকদের অভাব নেই কিন্তু তাদেরকে সম্মান দেবার লোকের অভাব।

নীল ক্ষেত কিংবা আজিজের মেডিকেল বুক স্টোর গুলোতে দাঁড়ালে দেখা যায়, ছাত্রছাত্রীরা এমডি/এফসিপিএস-এর বই আর কিনছে না। বরং তারা এমআরসিপি, এএমসি এবং ইউএসএমইলি-এর বই বেশী কিনছে। তাদের ধারনা, এই দেশে তারা সম্মনা পাবে না যেটা বিদেশে পাবে। তারা তাদের কাজের স্বীকৃতি চায়। পড়ে, পড়ে মার খেতে চায় না। কুচক্রিদের খপ্পরেও পড়তে চায় না।

আমাদের প্রতিভা গুলো বিদেশে চলে যাচ্ছে।

এটা ভালো লক্ষন নয়।

এই ব্যর্থতা আমাদের সকলের।

 

ধন্যবাদ

ফয়সাল সিজার

Advertisements