চিকিৎসকদের পরামর্শ না মেনে চললে দোষটা কার?

বাপ্পির প্রথম ক্যান্সারের চিকিৎসা এত ভালো হয়েছিলো যে, আবার ক্যান্সার হবার সম্ভাবনা একদম ছিলোই না। বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজের জাফর মাসুদ ভাই এবং ডেল্টা মেডিকেল কলেজের লাভলু স্যার বাপ্পির যে চিকিৎসা দিয়েছিলেন সেটিত ফলাফল কতটা ভালো হয়েছিলো টা বাপ্পির খাবাএর রুচি এবং ওজন বৃদ্ধি দেখেই বোঝা যাচ্ছিলো। উনাদের দুজনেরই চিকিৎসা এবং ফলোআপ খুবই ভালো হয় এবং তাই উনাদের কাছে রোগীরা ছুটে যান ভালো চিকিৎসার জন্য। আমাদের বাংলাদেশের ডাক্তারেরা অনেক মেধাবী এবং দক্ষ। অন্যায় ভাবে এদেরকে হেয় করা হয়।

এখন রোগী যদি চিকিৎসকের পরামর্শ সঠিকভাবে মেনে না চলেন তাহলে একজন চিকিৎসক কি করতে পারেন? আমি বাপ্পিকে বারবার সাবধান হতে বলতাম যেন কোন রিস্ক ফ্যাক্টর যেমনঃ ধূমপান, জর্দা ইত্যাদি উনি যেন আর ব্যবহার না করেন কারন এগুলো আবার ক্যান্সারকে ফিরিয়ে আনবে এবং তখন সব পরিশ্রম বৃথা হয়ে যাবে।

কিন্তু বাপ্পি মনে করতেন জীবনেও তার আর ক্যান্সার হবে না এবং তাই তিনি লুকিয়ে, লুকিয়ে আমাদের বাসার পাশের দোকানে ধূমপান করতেন। এই ব্যাপারটি আজকে জানলাম। Squamous Cell Carcinoma যদি আবারও গর্জে ওঠার উপাদান গুলো ফিরে পায় তাহলে তার রূপ ভয়ংকর হয়। বাপ্পির ক্ষেত্রে তাই হয়েছে। কোন কিছুতেই সেটি আর দমে যায়নি। আমি কড়া করে বকা দিয়ে জিজ্ঞেস করতাম তুমি নিশ্চয়ই কোন অকাজ করছ যেটা লুকিয়ে রাখছো। আমার কড়া কথা শুনে উনি অন্যদিকে হাঁটা দিতেন। আমার সন্দেহ ভুল ছিল না। শুধু বেয়াদপ ট্যাগটাই ভাগ্যে জুটত।

ছেলেমেয়ে বাবা-মায়ের সাথে খারাপ আচরন করে কিন্তু সেটির পেছনে কারন থাকে। যত্রতত্র তাদেরকে বেয়দপ উপাধি দেওয়া উচিৎ না। বেয়াদপিটা কারো ভালোর জন্যই করা হয়।

বাপ্পি, তুমি এই কাজ কেন করতে? এর ফলাফলটা কি হলো। তুমি আমাদেরকে ছেড়ে চলে গেলে। বাবার কাঁধে ছেলের লাশ সবচেয়ে ভারী জিনিস আর ছেলের কাঁধে বাবার লাশের ভাঁড়টা কেমন? কবরে নেমে নিজের বাবাকে মাটি দেওয়াটা কেমন ব্যাপার? এটা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না।

মা-বাবাদের বড় সমস্যা হলো, নিজের ছেলে কিংবা মেয়ে ডাক্তার হলেও তাদের কথাকে অবহেলা করা। দরকার পড়লে পাশের বাড়ির ভাবি কিংবা ভাইদের পরামর্শ উনারা নিবেন কিন্তু নিজের ছেলে-মেয়ের পরামর্শ নিবেন না। ঘরে ডাক্তার থাকতে কেন অন্যের কাছে যেতে হবে?

ছেলে হিসেবে আমার নিজেকে খুবই অবহেলিত মনে হয় যখন আমার নিজের মা এবং বাবা আমার পরামর্শকে প্রাধান্য দেন না। দিন শেষে তো আমার কথাই ঠিক হয়। আমার মনে হয় আমার কাতারে আরও অনেকেই আছেন। যারা আছেন তারা আমার ব্যাপারটি খুব ভালোভাবে বুঝবেন।

আমার বাপ্পির ব্যাপারটি সবার জন্য শিক্ষণীয়। আমাদের দেশের চিকিৎসকগন নিজের সেরাটা উজার করে দিয়ে চিকিৎসা দেন কিন্তু আপনারা যদি সাধারন নিয়ম গুলো না মানেন তাহলে দোষটা কার একটিবার ভেবে দেখবেন প্লিজ।

 

ধন্যবাদ

ফয়সাল সিজার

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s